website design and development
Book,  Self Help,  TazulMasud

কীভাবে বই বাছাই করবেন?

বই

বই একটি প্রয়োজনীয় জিনিস আমরা সবাই জানি। এই যুগের ব্যবসায়ীরা আরও ভালোভাবে জানেন বই পড়ার গুরুত্ব। একটি বই জোগাড় করতে হয়তো কিছু টাকা লাগে। কেউ আবার ধার করে পড়েন। কিন্তু বইটি পড়তে অনেক সময় লাগে। আমরা জানি সময় টাকার চেয়েও মুল্যবান। তাই সেই বইটি পড়া উচিৎ, যে বই আপনার সাথে যায়। যে বইয়ের জ্ঞান বাস্তবায়নে আপনার আস্থা আছে।

কিভাবে বই সিলেক্ট করবেন?

বই সিলেক্ট এই করার পদ্ধতি অনেকেই হয়তো জানেন। যারা জানেন তাদের অভিনন্দন। পদ্ধতিটা হচ্ছে, আপনি যে ইউটিউবারদের উপকারী মনে করে ফলো করেন অথবা যার ব্লগগুলো পড়েন তার বইগুলো কিনে পড়া শুরু করে দেন।

ব্লগে আর ইউটিউবে আপনি হয়তো তার মেসেজ গুলো পেয়ে উপকৃত হচ্ছেন, কিন্ত এই মেসেজগুলো হচ্ছে খন্ডিত জ্ঞান। সে কথাগুলো কেন বললো, এই কথাগুলো পিছে গ্রামার কি? এগুলোর জন্যে প্রয়োজন পুর্নাঙ্গ জ্ঞান। আপনি সেই লোকের লেখা বই কভার টু কভার পড়ে ফেলেন। তাহলে আপনি স্বাদ পাবেন তার বক্তব্যের পুর্নাঙ্গ জ্ঞান। এরপর যখনই আপনি তার ভিডিও অথবা ব্লগগুলো পড়বেন, তখন আপনি জ্ঞানগুলো আরও নিতে পারবেন। সেই জ্ঞানের বাস্তবায়ন হবে আরও সহজ।

উদাহরণ হিসেবে বলছি, আপনি The Secret এর টুইটগুলো পড়েন, আপনার খুব ভালো লাগবে। অসাধারন অসাধারন বক্তব্যে আপনি মুগ্ধ হবেন। কিন্তু যখন আপনি The Secret বইটি পুরো পড়বেন, তখন আপনি উপলদ্ধি করবেন The Secret এর প্রতিটি টুইট।

আপনি যেসব ইউটিউবারদের ভিডিও দেখেন, যাদের উপর আপনার আস্থা আছে, খোজ নিন তাদের লেখা বই প্রকাশিত হয়েছে কিনা। খুঁজুন পেয়ে যাবেন। ইদানীং আয়মান সাদিকের ভিডিও দেখে অনেকে উপকৃত হচ্ছেন। আপনি যদি তার ভক্ত হয়ে থাকেন, তাহলে তার বই জোগাড় করে পড়তে পারেন। অথবা যাকে মনে হয়, উনার জ্ঞান আমার জীবন চলার পথে কাজে আসবে, তার বই কিনে ফেলেন।

তবে সব ইউটিউবার যে ভালো বই লিখবে তা নাও হতে পারে। তাই কয়েকটা জিনিস খেয়াল রাখবেন।

  • সেই ইউটিউবার পড়াশুনা করেন কিনা অর্থাৎ নিয়মিত বই পড়েন কিনা।
  • সেই ইউটিউবার সফল কিনা।
  • শিক্ষিত সমাজে তার গ্রহণযোগ্যতা আছে কিনা।

আমি স্যার রিচার্ড ব্রানসনের ব্লগগুলো নিয়মিত পড়তাম। কিন্তু যখন তার বইগুলো পড়া শুরু করি। তার ব্লগের লেখাগুলো যেন জীবন পেলো।

উনার একটি উপদেশ আপনাকে জ্ঞানার্জনে সহযোগীতা করবে, “Listen, take the best. leave the rest.” আপনিও পড়বেন, যেটা আপনার ধর্মগ্রন্থের সাথে যায় সেটা গ্রহন করবেন, বাকীগুলো এড়িয়ে যাবেন। আশাকরি আপনারা যার যার ধর্মগ্রন্থ নিজের ভাষায় পড়েছেন। তাহলেতো কথাই নেই। আপনি জ্ঞানের সমুদ্রে এগিয়ে রইলেন এবং সঠিক পথে আছেন।

লেখাটা ভালো লাগলে শেয়ার করবেন, যাতে আপনার বন্ধুরা উপকার পায়।

ধন্যবাদ সাথে থাকার জন্যে।


শেয়ার করতে পারেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *